5:20 am - Friday January 19, 2018

সৌদি স্পেশাল ফোর্সের ক্যাম্পে ভয়াবহ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা

ইয়েমেনের হাউছি আনসারুল্লাহ বিদ্রোহীরা সৌদি আরবের স্পেশাল ফোর্সের একটি ক্যাম্পে ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে হামলা চালিয়েছে। দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলীয় সীমান্তবর্তী নাজরান প্রদেশের ওই সেনা ক্যাম্পে মূলত গানশিপ রাখা হতো।

হাউছিরা বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, কাহের এম-২ ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র দিয়ে ওই ক্যাম্পে হামলা চালানো হয়েছে তবে এ বিষয়ে তারা বিস্তারিত কিছু জানায় নি। সৌদি নেতৃত্বাধীন জোটও বিষয়টি নিয়ে কোনো মন্তব্য করেনি।

এর আগে বুধবার ইয়েমেনের হাউছিরা নাজরান প্রদেশে সৌদি আরবের একটি ঘাঁটি দখল করে নিয়েছে। ওই অভিযানে বেশ কয়েকজন সৌদি সেনা নিহত হয়।

গত কয়েক মাস ধরে ইয়েমেনের হাউছি বিদ্রোহী ও তাদের অনুগত সেনারা প্রায় নিয়মিতভাবে সৌদি আরবের ভেতরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়ে আসছে। তবে এসব হামলায় ক্ষয়ক্ষতির কথা প্রকাশ করছে না সৌদি আরব।

সৌদি ও আমিরাতের সব বন্দরে হামলার হুমকি হাউছিদের

গত আগস্টে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিমানবন্দর এবং সমুদ্রবন্দরে ক্ষেপণাস্ত্র হামলার হুমকি দিয়েছিল ইয়েমেনের হাউছি বিদ্রোহীরা। ২০১৫ সালের মার্চ মাস থেকে সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট ইয়েমেনের ওপর যে অভিযান চালিয়ে আসছে তার জবাবে এ ব্যবস্থা নেয়ার হুমকি দেয় তারা।

হাউছি আন্দোলনের রাজনৈতিক শাখা থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, ‘সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সমস্ত বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর, সীমান্ত ক্রসিং পয়েন্ট এবং এসব দেশের যেকোনো গুরুত্বপূর্ণ স্থান আমাদের ক্ষেপণাস্ত্রের সরাসরি লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত হবে যা আমাদের বৈধ অধিকার।’

হাউছিরা আরো বলেছে, ‘আমরা নিরলস বসে থাকব না বরং ইয়েমেনের ওপর আরোপিত অবরোধ নস্যাৎ করা এবং দেশের জনগণকে দুর্ভিক্ষের মুখে ফেলা কিংবা অপমান প্রচেষ্টার বিষয়ে আমরা আরো নানা উপায়ে ব্যবস্থা নেব।’

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোট ঘোষণা করেছে, ইয়েমেনের সমস্ত বিমানবন্দর, সমুদ্রবন্দর ও স্থলবন্দর সামিয়কভাবে বন্ধ করে দেয়ার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এর একদিন পর হাউছিরা সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের বন্দরগুলোতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর ঘোষণা দেয়।


Filed in: আন্তর্জাতিক
error: Content is protected !!