11:28 am - Tuesday February 20, 2018

মেলায় ৩০০ টাকার বিরিয়ানি ৮০০ টাকা!

খামারবাড়ী থেকে স্ত্রীকে নিয়ে বাণিজ্য মেলায় ঘুরতে এসেছেন জহির রায়হান। ঘোরাঘুরির পর্ব শেষ এবার খাবার পালা। তাই স্ত্রীকে নিয়ে দিল্লী শর্মা এন্ড বিরিয়ানি হাউজে খেতে গেলেন জহির রায়হান। খাওয়ার পরতো চোখ কপালে উঠলো রায়হানের। তাঁর কাছ থেকে ৩০০ টাকার বিরিয়ানি ৮০০ টাকা নেওয়া হয়।

যেখানে ১৪০ টাকার হাফ কাচ্চি দিয়ে দাম রাখা হচ্ছে ৮০০ টাকা। আর ৩০ টাকার নান রুটির দাম ১০০ টাকা। জহির নাছোড়বান্দা । এত সহজে ছেড়ে দেয়নি। খাবারের দাম বেশি নেওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে জহির লিখিত অভিযোগ করেন মেলায় অবস্থিত(অস্থায়ী) ভোক্তা অধিকার অধিপ্তরে।

অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় দিল্লী শর্মা এন্ড বিরিয়ানি হাউজকে ২৫ হাজার টাকা জরিমানা করেন ভোক্তা অধিকার অধিপ্তরের সহকারী পরিচালক মাকফুর রহমান। এবং আইন অনুযায়ী ২৫০০ টাকা পুরস্কার দেওয়া হয় জহির রায়হানকে।

শুধু জহির রায়হান নয় মেলায় আগত অনেকের কাছ থেকে নির্ধারিত মূূল্যের চেয়ে বেশি দাম নেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে এবারের বাণিজ্য মেলায়। সাধারণত মেলার শেষের দিকে মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে।

আর এই সুযোগে ভূয়া বিজ্ঞাপন দিয়ে মানুষ ঠকানোর হিড়িক পড়ে স্টলগুলোতে । একটা কিনলে একটা ফ্রি, আখেরি অফার, দামকা অফার, বিশাল মূল্য ছাড়সহ বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে ক্রেতাদের পকেট কাটার মহা উৎসবে মেতে উঠে প্রতারণাকারীরা।

ভোক্তা অধিকার অধিপ্তরের আরেক কর্মকর্তা মো. আবদুল জাব্বার মন্ডল জানান, আজ শুক্রবার আমাদের পক্ষ থেকে মেলা প্রাঙ্গণে কয়েকবার অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসব অভিযানে বরিশাল গৌড় নদীর একটি খাবার দোকানে পণ্যের মূল্য না থাকায় তিন হাজার টাকা, মেসার্স মা ফুডকে নান্না বিরানি নাম ব্যবহার করে মিথ্যা বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ক্রেতা সাধারণকে প্রতারণা করায় ২০ হাজার টাকা, পণ্যের উৎপাদনের তারিখ ও মূল্য না থাকায় ইরানি পণ্য সমাহারকে তিন হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করে দেওয়া হয়।

ভোক্তা অধিদপ্তর সূত্রে জানা গেছে, অতিরিক্ত মূল্য আদায়, মিথ্যা বিজ্ঞাপন, সময় মত ডেলিভারি না দেওয়াসহ নানা অভিযোগে শুক্রবার রাত টা পর্যন্ত ১৭ টি প্রতিষ্ঠানকে মেলার ১৯ তম দিন পর্যন্ত ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এসব অভিযোগের বেশির ভাগ অভিযোগ পাওয়া গেছে খাবারের দোকান ও কোকারিজ প্রতিষ্ঠানগুলির বিরুদ্ধে বলে জানান তিনি।


Filed in: অর্থনীতি