11:26 am - Tuesday February 20, 2018

স্মার্টের তালিকায় যুক্ত হল নতুন স্মার্ট জুতা ও ফার্নিচার…

স্যান্ডেল-ফার্নিচারের একা একা নড়াচড়া দেখে মনে হতে পারে সব যেন কোনো যাদুর কেরামতিতে হচ্ছে। তাবে আসলে এসব সম্ভব হচ্ছে নিসানের অটোনোমান পার্কি টেকনোলজির বদৌলতে।

নিক ম্যাক্সফিল্ড নামে নিসানের এক মুখপাত্র বলছেন, গাড়ির জন্য প্রচুর প্রক্রিয়াকরণ শক্তি প্রয়োজন হয়। কার পার্কিংয়ের জন্য দরকার হয়- চারটি হাই-রেজ্যুলেশন ক্যামেরা; যেগুলো রিয়েল টাইম ইমেজ প্রসেস করতে সক্ষম এবং ১২টি সোনার সেন্সর। এগুলোর মাধ্যমে সংগৃহীত তথ্য প্রসেসিং করে সিস্টেম তারপর গাড়ির অ্যাক্সিলেটর, ব্রেক, স্টিয়ারিং ও ট্রান্সমিশন নিয়ন্ত্রণ করে গাড়িটি নিরাপদে পার্ক করতে পারে।

তিনি আরও বলেন, অবশ্যই, এই প্রযুক্তি স্যান্ডেল ও কয়েকটা বালিশের উপর প্রয়োগ করা অনেক সহজ।

এ প্রযুক্তিতে প্রত্যেকটা জিনিসের একটা ‘স্টার্ট’ বা ‘হোম’ পজিশন আছে। একটা বোতাম চাপতেই যেগুলো চালু হয়।

এ ছাড়া রুমের ভেতর ও অভ্যর্থনা কক্ষের ছাদে রয়েছে ক্যামেরা। ম্যাক্সফিল্ড বলছেন, ইমেজ-প্রসেসিং টেকনোলজি ব্যবহার করে ক্যামেরাগুলো মেঝেতে থাকা কোনো বস্তুকে চিনে নয়।

এ হোটেল যে স্বয়ংক্রিয় স্যান্ডেলগুলো রয়েছে সেগুলোর নিচে দুটি ছোট্ট চাকাও রয়েছে। এ চাকার সাহায্যে স্যান্ডেলগুলো যে স্বয়ংক্রিয়ভাবে কেবল চলাফেরা করে তাই-ই নয়, স্যান্ডেলগুলো কেউ পায়ে পরলে চাকাগুলো নিজে থেকেই নিজেকে গুটিয়ে নেয়।

সূত্র: সিএনএন।


Filed in: বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি